প্রচ্ছদ >> সারাদেশ

ইউপি চেয়ারম্যানের পুকুর দখলের চেষ্টা, হামলায় আহত ১৫

আজ শুক্রবার দুপুরে রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে হামলা ও ভাঙচুর চালানোর অভিযোগ উঠেছে। এ সময় সংঘর্ষে তিনজন নারীসহ ১৫ জন আহত হয়েছেন।

আহতদের মধ্যে শুকুর আলী (২৯), মফেজ উদ্দিন (৫২), আতরজান (৫০), নজরুল ইসলাম (২৮) ও এলেকা বিবিকে (৩০) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের প্রাথমিক চিকিত্সা দেওয়া হয়েছে।

স্থানীয় লোকজনের ভাষ্যমতে, নরদাশ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুর রশিদের নেতৃত্বে একদল লোক পুকুর দখলের চেষ্টায় প্রতিপক্ষের বাড়িঘরে হামলা-ভাঙচুর চালায়।

এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার গোড়সার গ্রামের সেকেন্দার আলী তাঁর সহযোগীদের নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে ওই গ্রামের বড়পুকুরিয়া নামের একটি খাস পুকুর ইজারা নিয়ে মাছ চাষ করে আসছেন। কিছু দিন আগে ইজারায় অনিয়মের অভিযোগ এনে এটি নিজের নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার চেষ্টা করেন আবদুর রশিদ। এর জের ধরে আজ সকালে চেয়ারম্যান আবদুর রশিদ ৩০-৪০ জন ভাড়াটে লোকজন নিয়ে জাল ফেলে পুকুর দখলের চেষ্টা চালান। এ সময় প্রতিপক্ষ সেকেন্দার আলীর লোকজন তাঁদের বাধা দিলে সংঘর্ষ বেধে যায়। আবদুর রশিদের লোকজন তিনটি বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। এ সময় সংঘর্ষে ১৫ জন আহত হন।

সেকেন্দার আলী অভিযোগ করেন, চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে তাঁদের পুকুর দখলের চেষ্টা করা হয় এবং লোকজন ও বাড়িঘরে হামলা চালানো হয়।

ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রশিদ সংঘর্ষের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করলেও নিজে এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। চেয়ারম্যান হওয়ায় এ ধরনের অভিযোগ তোলা হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল হামিদ বলেন, ‘চেয়্যারমানের নেতৃত্বে হামলা হয়েছে বলে আমরা অভিযোগ পেয়েছি। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে এসেছে। এ ঘটনায় এখনো মামলা হয়নি।’ 

এই বিভাগের সর্বশেষ আপডেট