প্রচ্ছদ >> সম্পাদকীয়

আজ থেকে ২২ দিন ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ

আলফা নিউজ ডেস্ক: মা ইলিশ সংরক্ষণের অংশ হিসেবে আজ থেকে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত ২২ দিন ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। এ সময় উপকূল চিহ্নিত সাত হাজার বর্গ কিলোমিটার ইলিশের প্রধান প্রজনন ক্ষেত্র ও অন্য এলাকায় ইলিশ আহরণ, পরিবহন, মজুত, বাজারজাতকরণ এবং ক্রয়-বিক্রয় সম্পূর্ণরূপে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। কার্যক্রম সফল করতে দেশের ৩৭ জেলার নদ-নদী, হাট-বাজার এবং মৎস্য আড়তে বিশেষ অভিযান চালানো হবে। এই আদেশ অমান্য করলে কমপক্ষে এক বছর থেকে সর্বোচ্চ দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড বা পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা বা উভয়দণ্ড হতে পারে। মৎস্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মাসুদ আরা মমি জানিয়েছিলেন, ৭ অক্টোবর থেকে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত ২২ দিন ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ সংরক্ষণের অংশ হিসেবে ইলিশ ধরা ও বিক্রি নিষিদ্ধ করার প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। এই নিষেধাজ্ঞার মধ্যে ইলিশের নিরাপদ প্রজননের জন্য ২৭টি জেলার সব নদ-নদী, সমুদ্র উপকূল এবং মোহনায় এই রূপালী মাছ আহরণ নিষিদ্ধ থাকবে। দেশে ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধ থাকা ২৭ জেলা হচ্ছে- বাগেরহাট, চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী, ফেনী, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, বরিশাল, ভোলা, পটুয়াখালী, বরগুনা, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, শরীয়তপুর, ব্রাক্ষনবাড়িয়া, ঢাকা, মাদারীপুর, ফরিদপুর, রাজবাড়ি, জামালপুর, নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী, মানিকগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, খুলনা, কুষ্টিয়া ও রাজশাহী। একইসঙ্গে সমুদ্র উপকূল এবং মোহনায় ইলিশ ধরা যাবে না। প্রজনন মৌসুমে ইলিশ আহরণ, বিপণন, ক্রয়-বিক্রয়, পরিবহন, মজুদ ও বিনিময় নিষিদ্ধ। এজন্য এই সময়ে দেশের মাছঘাট, মৎস্য আড়ৎ, হাটবাজার, চেইনশপে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় অভিযান পরিচালনা করা হবে। বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
2019-09-14-05-50-32 আলফা নিউজ ডেস্ক:শুক্রবার তিনি দায়িত্বভার গ্রহণ করেন বলে ডিএমপির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক পদমর্যাদার কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম বিদায়ী কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়ার স্থলাভিষিক্ত হলেন। ২৮ অগাস্ট স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে শফিকুল ইসলামকে ডিএমপি কমিশনারের দায়িত্ব দেওয়ার কথা জানানো হয়। এর আগে বাংলাদেশ পুলিশের সিআইডির প্রধান হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন...
     
 
এই বিভাগের সর্বশেষ আপডেট