প্রচ্ছদ >> রাজনীতি

খালেদার বক্তব্য রাষ্ট্রদ্রোহমূলক ছিল না: মির্জা ফখরুল

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া তাঁর বক্তব্যে রাষ্ট্রদ্রোহমূলক কিছু ছিল না বলে দাবি করেছেন দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সোহরাওয়ার্দী সমাবেশে খালেদার বক্তব্যের প্রতিবাদে আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের মন্তব্যের পরে এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল।

সাতক্ষীরায় যৌথ বাহিনীর অভিযানে ‘আদৌ যৌথ বাহিনী’ এবং বাংলাদেশের কোনো আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য ছিলেন কি না, তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেন খালেদা জিয়া। তাঁর এই বক্তব্যকে গতকাল মঙ্গলবার ‘রাষ্ট্রদ্রোহ’ বলে মন্তব্য করে তা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে প্রত্যাহারের আহ্বান জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফ। এ বিষয়ে আজ বুধবার জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল সাংবাদিকদের কাছে এমন মন্তব্য করেন।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, ‘দেশের জনগণকে বিভ্রান্ত করার জন্য সৈয়দ আশরাফের  এ ধরনের কথা শোভা পায় না। আমি জানি না তিনি কোন অবস্থায়, কীভাবে ছিলেন এবং তাঁর জন্য এই বক্তব্য কতটুকু শোভন। তিনি সত্য না বলে মিথ্যাচার করেছেন।’

আজ নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তিনি সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন, বিরোধী দলের নামে সহিংসতার অভিযোগ এনে আওয়ামীলীগ বিরোধী দল নির্মূলের পরিকল্পনা করছে। এ জন্য সরকার হত্যা, গুম, খুন চালিয়ে যাচ্ছে সারা দেশে। এই সরকার রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের আশ্রয় গ্রহণ করেছে ও রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, গত তিন মাসে সারা দেশে তাঁদের ১৮৭ জন নেতা-কর্মীকে গুম করা হয়েছে। ২২৭ জনকে হত্যা করা হয়েছে। তিনি এসব হত্যা-গুমের জন্য নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করেন এবং মানবাধিকার সংস্থাগুলোকে এসব ঘটনার তদন্তে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

সাতক্ষীরায় অভিযান নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে গত সোমবার খালেদা জিয়া সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে দেওয়া ভাষণে বলেন, সাতক্ষীরায় যৌথ বাহিনীর অভিযানে ‘আদৌ যৌথ বাহিনী’ এবং বাংলাদেশের কোনো আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য ছিলেন কি না, তা নিয়েও সংশয় আছে। তিনি বলেন, ‘আপনারা দেখেছেন, কীভাবে মানুষকে নির্যাতন করেছে। আদৌ যৌথ বাহিনী ছিল কি না, সেটা নিয়ে মানুষের মনে সন্দেহ আছে। বাংলাদেশের পুলিশ ও অন্য বাহিনী এত নিষ্ঠুর হবে, এটা নিয়ে মানুষের সন্দেহ রয়েছে। তাদের কাজকর্ম দেখে মনে হয় না সার্বভৌমত্ব অটুট আছে। ৪২ বছর পর আবার স্বাধীনতা হারাতে বসেছি। এদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। মুক্তিযোদ্ধা যাঁরা বেঁচে আছেন, তাঁরা তো এ দৃশ্য দেখার জন্য বেঁচে নেই।’

গাইবান্ধায় যৌথ বাহিনীর হামলা নিয়েও খালেদা জিয়া একই রকম সংশয় প্রকাশ করেন।

FacebookMySpaceTwitterDiggDeliciousStumbleuponGoogle BookmarksRedditNewsvineTechnoratiLinkedinMixxRSS FeedPinterest
Pin It

মুফদি সভাপতি, কেরামত সম্পাদক রংপুর বিভাগ সাংবাদিক সমিতির নির্বাচন

মুক্তমত-1 |  শনিবার, 31 আগস্ট 2013
ঢাকা: ব্যাপক আনুষ্ঠানিকতার মধ্যদিয়ে ঢাকাস্থ রংপুর বিভাগ...
Read More

তারেক যেখানেই লুকিয়ে থাকুক, শাস্তি হবে: শেখ হাসিনা

সম্পাদকীয় |  শনিবার, 11 মে 2019
আলফা নিউজ ডেস্ক: যুক্তরাজ্য সফরের শেষ পর্যায়ে বৃহস্পতিব...
Read More

চাল ব্যবসায়ীদের লাইসেন্স নিতে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত সময়

সম্পাদকীয় |  সোমবার, 02 অক্টোবার 2017
আলফা নিউজ ডেস্ক : এই সময়ের মধ্যে যেসব ব্যবসায়ী লাইসেন...
Read More

পুরুষ থেকে নারী হয়ে চাকরি খোয়ালেন ভারতীয় নৌ কর্মকর্তা

প্রযুক্তি-1 |  বুধবার, 11 অক্টোবার 2017
আলফা নিউজ ডেস্ক : কারণ, সাত বছর আগে যখন তিনি চাকরিতে যো...
Read More

প্রধানমন্ত্রীর সময়োচিত পদক্ষেপের কারনে কঠিন পরিস্থিতি মোকাবেলা সম্ভব হয়েছে -সেতুমন্ত্রী

সম্পাদকীয় |  বৃহস্পতিবার, 05 অক্টোবার 2017
আলফা নিউজ ডেস্ক : সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদ...
Read More

ডিজিটাল ক্যামেরা ১০ হাজারের মধ্যে

প্রযুক্তি-1 |  সোমবার, 22 জুলাই 2013
এস২৬০০এখন প্রায় সব মুঠোফোনেই আছে ক্যামেরা। তবে এতে তো...
Read More
এই বিভাগের সর্বশেষ আপডেট